কিভাবে খারাপ অভ্যাস ত্যাগ করবেন। খারাপ অভ্যাস ত্যাগ করার কিছু উপায়। Solve Hobe

2
454

হ্যালো বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশা করছি সবাই ভালো আছেন আজকে আমি এই ভিডিওতে কিছু tips and tricks বলতে চলেছি যে tips and tricks follow করলে মাত্র তিন মাসের মধ্যে আপনি পরিবর্তন করতে পারবেন।

বা নিজের অভ্যাসগুলো বদলাতে পারবেন নিজেকে বদলানো বলতে নিজে খারাপ অভ্যাস গুলোকে ত্যাগ করে ভালো অভ্যাস নিজের মধ্যে তৈরি করাকে বোঝানো হয়েছে।

আমরা যখন অভ্যাস নিজের মধ্যে আনার চেষ্টা করি তখন অনেকেই ভাবি আজকে পনেরো তারিখ তাহলে এক তারিখ থেকে এই রুটিনটা আমি ফলো করতে শুরু করব।

এখানে আমার আপনাদের কাছে প্রশ্ন হল, আরে ভাই তারিখটা কি দোষ করলো যে পনেরো তারিখ থেকে শুরু করা যাবে না।

এক তারিখটাই আসতে হবে. যদি কেউ কোনো অভ্যাস বা habit নিজের মধ্যে তৈরী করতে চান, তাহলে যেই দিন সেই পরিকল্পনাটা করলেন, তার পরের দিন থেকে সেই অভ্যাসে লেগে পড়ুন, আর সম্ভব হলে সেই মুহূর্ত থেকেই লেগে পড়ুন, যখন কোন অভ্যাস আপনার মধ্যে আপনি তৈরি করতে চান, তখন যদি আপনি দশ দিন পর থেকে সেই অভ্যাসের কথা চিন্তা করেন, তাহলে দশ দিন পর যখন আপনার সে অভ্যাসটি শুরু করার কথা তখন মনে হবে আজ না থাক. কাল থেকে শুরু করব।

আবার কাল মনে হবে তার পরের দিন থেকে শুরু করি. আর এইভাবে আপনার অভ্যাস তৈরি করাটাই হবে না. তাই প্রথমত এ অভ্যাসগুলো ছিঁড়ে ফেলে যখন আপনি পরিকল্পনাটা করলেন, তার পরের দিন থেকেই আপনি সেই অভ্যাসে লেগে পড়ুন।

নিজেকে বদলানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের অভ্যাস থাকতে পারে. আমি এখানে নিজেকে বদলানোর পাঁচটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করছি, আর এই ভিডিও দেখার পর বুঝে নিন আপনার মতে আর কোন কোন অভ্যাসটা তৈরি করা জরুরি. তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে মূল ভিডিও তে যাওয়া যাক।

প্রতিদিন নিজের জন্য কিছু স্পেশ্যাল রাখুন. যেটা আপনাকে নিজেকে সতেজ রাখতে সাহায্য করবে. যেমন আমার উদাহরণটা দিয়েই যদি বলি, কিছুদিন আগেই বাড়িতে বসে থেকে আমার খুব ফিল হচ্ছিল. সারাদিন ভিডিও এডিট, ভয়েস রেকর্ডিং, ইত্যাদি দিয়েই সারাদিন কেটে যেত. আর এটার জন্য আমাকে খুবই বোরিং ফিল হত।

কিন্তু কিছুদিন হল, আমি বিকাল করে একঘন্টা ভলিবল খেলতে শুরু করেছি, আর এই খেলাটা আমাকে খুব ভালো লাগে. এমনকি আমি এইটা চিন্তা করি যে কখন বিকাল আসবে আমি ভলিবল খেলতে যাবো।

আর সেই এক ঘন্টা বা দেড় ঘন্টা খেলার পর আমার নিজেকে অনেক ফিল হয়. আমার নিজেকে অনেক ফ্রেশ ফিল হয়. সারাদিনের ক্লান্তি যেন সেই খেলার মধ্যে দিয়ে পেরিয়ে যায়. অনেকেই হয়তো মনে করেন খেলাধুলা করলে দৌড়াদৌড়ি করতে হয়, শরীর আরো ক্লান্ত হয়ে যায়. কিন্তু য়টা আসলে আপনার সম্পূর্ণ ভুল ধারণা।

সারাদিন শুয়ে বসে থেকে বিকালবেলা খেলাধুলা করলে শরীরে আরো ফ্রেশ অনুভব করবেন আপনি।

তাই খেলাধুলা বা শরীর চর্চা শুরু করুন। Number two সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করা আমাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা সকাল দশটায় ঘুম থেকে উঠি আর তারা যদি সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস শুরু করতে প্রথম দিনেই সকাল সাতটায় ঘুম থেকে থেকে উঠলেন।

পুরো তিন ঘন্টা আপনার ঘুমের সমস্যা হলো আর এজন্য আপনাকে দিনেও কিন্তু ঘুম ঘুম ভাব হতে পারে তাই আপনার যা করা উচিত তা হলো প্রথমে সাড়ে নয়টা নয়টা সাড়ে আটটা আটটা সাড়ে সাতটা সাতটা এইভাবে ত্রিশ মিনিট করে করে আপনি ভোরে ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন।

আরেকটি কথা সকালে ঘুম থেকে ওঠার প্রক্রিয়াটা শুরু হয় আসলে রাত থেকে। আসলে আপনি রাতে যত আগে ঘুমাতে পারবেন সকালে আপনি তত ভরে উঠতে পারবেন।

আর যদি আপনি রাত বারোটায় ঘুমিয়ে সকাল সাতটায় ওঠার চেষ্টা করেন, তবে তার ক্ষতিপূরণ হিসেবে, পরের দিন সকাল বারোটায় উঠতে পারেন আপনি।

তাই তিরিশ মিনিট, তিরিশ মিনিট করে আগে ওঠার চেষ্টা করুন. Number three নতুন কিছু শেখা নতুন কিছু শেখা বলতে আমি বোঝাতে চাচ্ছি আপনি যেটা এখন শিখছেন কিন্তু এটা আপনাকে দেবে ছয় মাস বা এক বছর পরে অনেকের মনে হয়তো প্রশ্ন জাগছে এমন কি জিনিস হতে পারে?

যেমন হতে পারে তিন মাসে আপনি ইংলিশ শিখলেন যেটা আপনাকে আজীবন সাহায্য করবে বা আপনি YouTube এ শিখতে পারেন অথবা fill encing শিখতে পারেন যেটা আপনাকে এখন শিখলে পরবর্তীতে আপনাকে অনেক বড় সাহায্য করবে।

আর একবার যদি আমি ফিল্যান্সিং শিখতে পারেন তাহলে তো টাকায় টাকা. তাই তিন মাসে আপনার পছন্দ অনুযায়ী কোনো কিছু শিখুন।

Number four কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ বলতে কারো কোন কাজ আপনাকে অনেক ভালো লাগলো।

তখন আপনি তাকে বলতে পারেন। ভাই তোমার এই কাজটা না অনেক সুন্দর হয়েছে। বা আপনি কারো দ্বারা উপকৃত হলেন। তখন তাকে ধন্যবাদ এবং আপনি যে তার প্রতি কৃতজ্ঞ সেটা তাকে জানাবেন।

আপনি আপনার মাকেও কৃতজ্ঞতা জানাতে পারেন. যেমন আপনার মা এত কষ্ট করে এত সুস্বাদু রান্না করে।

তখন আপনি ছোট্ট করে কি বলতে পারেন মা তোমার আজকের এই রান্নাটা না অনেক সুন্দর হয়েছে।

আর এই কৃতজ্ঞতা আপনাকে মানুষের মাঝে অনেক উপরে তুলে রাখবে. আপনি যখন অন্য কোন মানুষকে কৃতজ্ঞতা জানাবেন আর সেই মানুষগুলি পরবর্তীতে আপনার কেও সম্মান দেবে।

Number five সবাইকে সম্মান দিয়ে কথা বলুন. লোক সমাজে একটা কথা আছে যদি সম্মান দেন তাহলে সম্মান পাবেন।

অনেক মানুষ আছে যাদের অহংকারের কারণে কারো সাথে ঠিক ভাবে কথা বলে না। তারা ভাবতে থাকে সামনের জন তার সাথে আগে কথা বলুক তারপর সে কথা বলবে।

এইসব কর্মকাণ্ডের ফলে মানুষের মনে আপনার বিষয়ে আরো নেগে র চিন্তা ভাবনা আসে, তাই ছোট বড় সবাইকে স্নেহ এবং সম্মান করে চলুন।

তাহলে দেখবেন আপনাকেও সবাই সম্মান করছে। তো আশা করা যায় এই অভ্যাসগুলো যদি আপনি ফলো করতে পারেন তাহলে আপনি সবসময় হাসিখুশি থাকতে পারবেন।

আর মনে রাখবেন এইটা মাত্র তিন মাসের একটি কোড তিন মাসের মধ্যে আপনি নিজেকে পরিবর্তন করতে পারবেন। এই বিষয়গুলো ফলো করলে।

ধন্যবাদ

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here