মাত্র ৩ মাসে নিজেকে বদলে ফেলার সহজ ৫টি উপায়। নিজেকে পরিবর্তন করার উপায়। Solve Hobe

0
403

আমাদের new year resolution গুলো ফেল করে, তার কারণ আমরা সারা বছরে যত ভালো কাজ আছে সব জানুয়ারীর এক তারিখ থেকে শুরু করে দেওয়ার চেষ্টা করি, এবং পাঁচ দিন পরে, সবগুলো fail করে, তার কারণ হলো গঠন করা বা একটা habit form করার জন্য বেশ কিছুদিন সময় দিতে হয় এবং একসাথে সব habit যদি change করতে চান একটাও দিন শেষে কাজ করে না তাই মাঝে মধ্যে চেষ্টা করবেন যে ছোট ছোট sprint এ habit change করার চেষ্টা।

স্প্রিন্ট হতে পারে দুই সপ্তাহ স্পিড হতে পারে একমাস প্রিন্ট হতে পারে তিন মাস বা একটা কোয়াটার. বিজনেস গুলো যেমন কোয়ার্টালি সব টার্গেট সেট করে।

তাই আমিও চেষ্টা করছি আপনাদেরকে একটা portally level of প্ল্যান দেওয়া। quar মানে তিন মাসের একটা কংক্রিট level up প্ল্যান।

যে তিন মাসে আপনি কি করতে পারেন। এই তিন মাসের প্ল্যান গুলো আমি আমার লাস্ট quarterly প্ল্যান এ ছিল।

So এই প্লাস quarterly প্ল্যান এর যেই জিনিস গুলো আমি successfully করতে পারছি। আজকে আমি আপনাদের সবার সাথে শেয়ার করবো।

Number one যেটা আমার happiness অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে. সেটা হলো বহুদিন পর আমি আবারও ফুটবল খেলা শুরু করেছি।

এবং যেটার ফলে প্রতিদিন বিকালবেলা আমার যত কিছু থাকুক না কেন আমার মিটিং হলে আমি either আগে shift করি অথবা পরে shift করি।

এবং এই football টা খেলি। এবং football খেলার সময় আমি একটা জিনিস খেয়াল করেছি যে এই যে এক ঘন্টা, এই ঘন্টা, এক ঘন্টা সময় আমি আর অন্য কোনো কিছু চিন্তা করি না।

এই এক ঘন্টা আমি just খেলি এবং এটাতে যে কি ভালো লাগে এটা কল্পনার বাইরে. And আমি wait করি যে কখন বিকালটা আসবে।

ওয়েটার ফলে যেটা হয়েছে আগে সারাক্ষণ বাসায় থাকতে থাকতে কেমন যেন একটা lethurgic approach চলে আসছিল আমার কেমন জানি মর্মরা লাগে যে বলেন আমি গা টা একটু ম্যাচ ম্যাচ করে. বাট খেলার ফলে ঘাটার ম্যাচ ম্যাচও করে না, মনমরাও লাগে না, অনেক এনার্জিটিক লাগে. অনেকে একটা ভুল ধারণা আছে।

যে খেললে তো অনেক এনার্জি চলে যায়। খেলার পরে তো কাজই করা যাবে না। এটা একেবারে উল্টোটা হয়।

আপনি যদি বিকেলবেলায় খেলেন, খেলার পরে দেখবেন আপনার এলার্জি আরো বেড়ে গেছে. যেমন আমি এখন সন্ধ্যেবেলায় shoot করছি।

একটু আগে দুই ঘণ্টা খেলে আসছি। আর আমার এখন energy তে energy, আমি চাইলে আরো দু তিন ঘন্টা খেলতে পারব বা আরো দুই তিন ঘন্টা shoot করতে পারব, try করে দেখতে পারেন।

Number two সকালে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করা. And please আপনি যদি সকাল দশটা থেকে ঘুম থেকে উঠেন এক ধাক্কায় সাতটার সময় এলেন না।

সাড়ে নয়টা করেন ভোর নয়টা তারপরে সাড়ে আটটা তারপরে আটটা তারপরে সাড়ে সাতটা তারপরে সাতটা মানে এক সপ্তাহে যদি আপনি সাতটায় ওঠার চেষ্টা করেন ওই একদিনই উঠবে।

পরের দিন আবারো দশটা না। আগের দিনের ক্ষতি পূরণ করার জন্য তাকে বারোটায় উঠছে।

always একটু একটু করে আগাবেন. That’s act number one. And secondly সকালে ঘুম থেকে ওঠার সব থেকে বড় important জিনিসটা আসলে সকালের না জিনিসটা হলো রাতের. উঠতে চান সকাল সাতটায়।

ঘুমিয়েছেন রাত দুইটায়. চাপটায় উঠে তো লাভ নেই, আবারও কিছুক্ষণ পর ঘুম ধরবে, তো সকালে ওটা সবথেকে important element কিন্তু শুরু হয় রাতে, যে আপনি কত রাতে, কত early ঘুমাতে পারছেন।

And third সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে না নিজের জন্য স্পেশ্যাল moment রাখতাম. যেমন আমার এখন breakfast করি। So breakfast টা একটু ভালো খাবার থাকে, ও সকালে ঘুম থেকে উঠতেই ভালো লাগে, আমি উঠার পরে একটু ভালো breakfast থাকবে। মজা লাগবে।

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে এখন দেখা যায় যেহেতু what from home, লোকজন একটু পরে উঠে, so প্রথম দু তিন ঘন্টা আমাকে কেউ disturb করবে না, একটা off all আসবে না, so আমি পুরো দুতিন ঘন্টা নিজের জন্য সময় পাই. বইয়ে পড়ি।

চাইলে কোনো movie দেখলাম, চাইলে আমি Facebook এই থাকলাম। কোনো অসুবিধা নেই. নিজের একটা সময়, কিন্তু আনন্দের বিষয়। Right?

So সকালে ঘুম থেকে ওঠার জন্য আপনার নিজের জন্যই কিছু মজার জিনিসপত্র রাখতেন. একজন আছে আমাদের difference স্কুলে ও যেটা করলো লাস্ট দিন বাজার থেকে নসিলানি আসছে। আমি বললাম যে একটু নসিলা কেন আনছিস? বলে হ্যাঁ আমি নসিল আনিনি. নসিল আর পাউরুটি আনসি। চকলেট মেসিলাটা আছে না? ওই বাচ্চারা খেতাম খুব মজা লাগতো, বাচ্চাগুলা বেশি খাইতে দিত না। একটু একটু করে লাগাই দিত. আমি এটা আনছি, আমি সকালবেলা ঘুম থেকে উঠতে চাই।

সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে আমি নচিলা খাব. এই নসিলা খাওয়ার জন্য আমার এখন সকালে ঘুম থেকে ওঠা So, আপনার জন্য insette টা কি?

এটা নসিলা হোক, পার্টি হোক, আর অন্য কিছু হোক খুঁজে বের করেন, অনেকের জন্য হয়তো আমার একটা চা হবে অথবা coffee হবে, but fine something, tensent এর কারণে আপনি সকালবেলা উঠতে পারবেন. Third start something new, অনেকেই নতুন নতুন ব্যবসা শুরু করছে।

Facebook এ অনেকেই কেক বিক্রি করছে, biscuit বিক্রি করছে, অনেকে ঘড়ি বিক্রি করছে, অনেকে পাঞ্জাবির ব্যবসা করছে, অনেকে T-shirt এর ব্যবসা করছে বিশ্বাস করেন এই জিনিসটা যখন আমি দেখে আমার যে কি ভালো লাগে, কল্পনার বাইরে।

তার কারণ হলো, দিন শেষে আপনি ব্যাবসায় পড়েন, আর BBA তে পড়েন, আর finance এর পরে accounting এর পরে, পুঁথিগত বিদ্যা পড়ে ব্যাবসার যা বুঝবেন actual ব্যবসা গুলো তার থেকে বহু গুণে better আইডিয়া হবে. তাই চেষ্টা করেন তিন মাসের জন্য at least কোন কিছু একটা try করা।

আর এখন তো ব্যবসা করা অনেক সহজ, Facebook এ একটা page খুলে সুন্দর tour ছবি টবি তুলে upload করতে কিন্তু আপনি আপনার ব্যবসার seals and মাখতে শুরু করতে পারছেন।

And তারপরে অর্ডার আসা শুরু করলে আপনি নিজেই ডেলিভারি দিলেন। পরে যদি অর্ডার একটু বেশি বেড়ে যায় তাহলে একটা ডেলিভারি পার্টনার খুঁজে নিলেন।

তাহলে কিন্তু কাজ হয়ে যায়। এটা হচ্ছে একটা, উন্মা এটার যে একটা excitement এটা না আসলে কোনো কিছুর সাথে তুলনা হয় না। ওই যে বলো না সৃষ্টির আনন্দ. তো একটা নিজের ব্যবসা নিজে তৈরী করছেন।

এক হাজার টাকারই যখন অর্ডার আসবে না তখন দেখবেন যে কি যে ভালো লাগছে এটা কল্পনার বাইরে। আর তিন মাসের জন্য প্ল্যান করেন, দেখেন হইলো হইলো না হইলো নাই, ওই তিন মাসে যা শিখবেন ট্রাস্টমি, এরা অনেকদিন মাথায় থাকবে।

নাম্বার four, গ্র্যাটিউড, জার্নাল, আইডিটা আমি আগেও শেয়ার করেছি, এই জিনিসটা আমি এখনো করি এবং অনেকেই আমাকে প্রশ্ন করেন. আমি বললাম হ্যাঁ আপনি কি কখনো খারাপ থাকেন না?

সারাক্ষণ আসেন কেন? আমার উত্তমগ্রামে আসলেও ভালো থাকি. আসলেও আমার লাইফ এ happiness অনেক বেশি. এবং এটা একটা ছোট্ট কাজ হল. আমার লাইফ এ যেই জিনিস গুলোর আমি কৃতজ্ঞ, সেই জিনিসগুলো আমি একটা জায়গায় লিখে রাখি।

And যাদের প্রতি কৃতজ্ঞ তাদেরকে আমি বলি. You know what? তোর এই কাজে আমি অনেক happy হয়েছি। আর thanks a lot, এই কাজটা আরো করিস। অথবা ভাই আপনার এই কাজের জন্য আমি অনেক উপকৃত হয়েছে।

Thank you so much আমাকে এই কাজটা করে দেওয়ার জন্য। So যার যার কাছে আপনি কোনো কিছু পেয়ে খুশি হয়েছেন, তাকে না বলে দেন, কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন. আর যদি জড়বস্তুর প্রতি কৃতজ্ঞ হন সেটা লিখে রাখেন।

যে আজকে এই ভালো খাওয়ার জন্য কই মাছের? আমি অনেক খুশি হয়েছি কারণ আজকে আমার lunch এ কই মারছিলো মাথায় রে কি ভাল লাগছে অনেকদিন পর কই মাছ পাইলাম।

So লিখে রাখবেন দেখবেন যে আপনার happiness আস্তে আস্তে অনেক বেড়ে যাবে। And number five final point. নিজের উপর একটু ইনভেস্ট করে, ইনভেস্টমেন্টটা টাকা দিয়ে না। ইনভেসমেন্টটা অন্যভাবে। কিভাবে?

আজকে আপনার লাইফে একটু তৃপ্তি বৃদ্ধি করার জন্য কি করতে পারে? মুভিটা হয়তো friends এর সাথে আড্ডা মারতে পারেন, চায়ের সঙ্গে বসে থাকতে পারেন, Facebook এ স্ক্রল করতে পারেন, এটা investigation না। Investigation এ সেটা যে আজকে এমন কিছু একটা করবেন, যেটা ফলাফল আজকে পাবেন না। এক বছর পরে হবে।

এমন কি আছে যেটা নিজের লাইফ এর ওপর করতে পারেন যেটার ফলাফল এক বছর পরে পাবেন. চিন্তা করে দেখেন এখন একটা ব্যবসা start করলে হয়তো বা এক বছর পরে turn পাবেন।

এখন নতুন একটা skill শিখলে হয়তো এক বছর পর return পাবেন এখন একটু কষ্ট করে তিন মাসে ইংরেজিটা শিখলে may be আজীবনীটা return পাবেন আজকে একটু কষ্ট করে filancing শেখা শুরু করলে তিন মাসের মধ্যে যদি একটু আয়ত্তে আনতে পারেন, লাইফ টাইম টাকা এগুলোকে আমি ইনভেস্টমেন্ট করছি. আপনার লাইফে ইনভেস্টমেন্ট আপনি খুঁজে বের করুন।

But তিন মাস নিজের লাইফে ইনভেস্ট করুন। দেখবেন এটা রিটার্ন আজীবন পাবেন। সো এই ছিল পাঁচটা জিনিস যে জিনিসগুলো আমি লাস্ট তিন মাসে try করেছি এটা আমার লাইফ অনেক বড় impact লেগেছে।

আশা করা যায়, এই পাঁচটা জিনিসের পাঁচ টাই যে করতে হবে এমন কোন কথা নয়. একটাও যদি try করেন এবং এটা যদি আপনার লাইফ কে positively impact করে, সেটা আমার জন্য একটা বিশাল পাওয়া হবে।

এটার জন্য আমি আপনার প্রতি কৃতজ্ঞ. সেই আইডিয়া গুলো আপনার ফ্রেন্ডের সাথেও শেয়ার করবেন এবং এর বাইরেও এই কোয়ার্টার লিভার তিন মাসের লেভেল অফ প্ল্যানে যদি আরো কিছু অ্যাড করার মত থাকে প্লিজ কমেন্টে জানাবেন।

ধন্যবাদ সকলকে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here